বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০২:৩৪ পূর্বাহ্ন
পরীক্ষামূলক সম্প্রচার:

কুড়িগ্রামে গোল্ডেন ক্রাউন তরমুজ চাষে সাফল্য

  • আপডেট টাইম : বুধবার, ৫ মে, ২০২১
  • ৪৮ দেখা হয়েছে

বাংলা হেডলাইনস কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি: কুড়িগ্রামের রাজারহাটে নতুন জাতের গোল্ডেন ক্রাউন তরমুজ চাষ করে সাফল্য দেখছে তিন তরুণ। শিক্ষিত বেকার এ তরুণরা এ জাতের তরমুজ চাষ করে উপজেলার সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছে।

অল্প জমিতে অল্প পুঁজি দিয়ে অনেক লাভের মুখ দেখছেন তারা। মাত্র দেড় বিঘা জমিতে ৮০ হাজার টাকা খরচ করে ইতোমধ্যে প্রায় দেড় লক্ষ টাকা আয় করার সুযোগ হয়েছে তাদের।

এসব তরুণদের তরমুজ চাষ এখানকার আরো অনেককে  আগ্রহী করে তুলেছে।অন্যান্য চাষিরা তাদের অনুসরণ করে নতুন তরমুজ লাগানোর কথা ভাবছেন।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর জানায়,ক্রাউন তরমুজ চাষ নতুন করে কুড়িগ্রামের কৃষিতে ভালো অর্জন হবে।

সরেজমিনে জানা যায়, জেলার রাজারহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সংলগ্ন হরিশ্বর তালুক গ্রামে তিন শিক্ষিত বেকার তরুণ এবার গোল্ডেন ক্রাউন তরমুজ চাষ করেছেন। অনার্স পড়ুয়া তিন বন্ধু করোনাকালীন সময়ে তাদের পড়াশুনা বন্ধ থাকায় পরিবারকে সহায়তা করতে কৃষি বিভাগের পরামর্শে জেলায় প্রথমবারের মত এ জাতের তরমুজ চাষ করেছেন। ঢাকার একজনের মাধ্যমে চুয়াডাঙ্গা থেকে ৭০ গ্রাম বীজ সংগ্রহ করেন তারা।

গত ২৬ ফেব্রুয়ারি জমিতে বীজ ছিটিয়ে ৭ দিনের চারা রোপণ করেন।পরে দেড় বিঘা জমিতে সব মিলিয়ে খরচ হয় প্রায় ৮০ হাজার টাকা।

দুই মাস যেতেই টকটকে হলুদ রঙের বাহারি তরমুজ উত্তোলন উপযোগী হয়ে পড়ে তাদের জমিতে। শুরু হয় উত্তোলণের কাজ।খরচ মিটিয়ে দেড় লক্ষ টাকার ওপরে আয় করার সম্ভাবনা দেখা দেয়।এজন্য খুশি রাজারহাটের ওই তিন তরুণ।

তিন জনের একজন তরুণ নুর আলম জানান,অভাবের কারণে ঢাকায় কাজ করতে গিয়েছিলাম। পরে অনেক ভেবে চিন্তে আবার এলাকায় ফিরে আসি।ভাবলাম এলাকায় কিছু করা যায় কিনা।কৃষি নিয়ে অনেক আগ্রহ ছিল।পরে কৃষি বিভাগের পরামর্শে উচ্চ ফলনশীল তরমুজ চাষে মনোযোগ দেই।

তিনি আরো বলেন আমরা তিন বন্ধু দেড় বছর ধরে বাসায় বসেছিলাম। পরিবারে স্বচ্ছলতার জন্য তাইওয়ান জাতের গোল্ডেন ক্রাউন তরমুজ চাষের কথা ভাবি।এ চাষ করে সাফল্য পেয়েছি। আমরা চাই আমাদের দেখে অন্যান্য তরুণ ও যুবকরা সফলতা আনতে পারে।

তরমুজ চাষ দেখতে আসা এক তরুণ মাহাবুবুল হাসান জিম জানান,এই প্রথমবার আমাদের এ উপজেলায় ক্রাউন জাতের তরমুজ চাষ শুরু হয়েছে।আমিসহ আমরা কয়েকজন এটি দেখতে এসেছি।পদ্ধতি জেনে নিজেরাও চাষ করতে আগ্রহ প্রকাশ করছি।

শুনেছি ওনারা যে বীজ এনেছেন তা তাইওয়ান থেকে। এই তরমুজে দ্বিগুণ পুষ্টিমান ও মিষ্টতা রয়েছে। আমরা বাণিজ্যিকভাবে এর প্রসার করতে পারলে আমরা অনেক উপকৃত হব। সেই সাথে কর্মসংস্থানেরও সুযোগ সৃষ্টি হবে বলে মনে করি।

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপপরিচালক মঞ্জুরুল হক বলেন,জেলার রাজারহাট উপজেলায় এই প্রথম উন্নত গোল্ডেন ক্রাউন জাতের তরমুজ চাষ হয়েছে।এটি প্রথম বাণিজ্যিক ফসল এবং এটি লাভজনকও বটে।

তিনি এসব অনার্স পড়ুয়া ছাত্ররা এ কাজে এগিয়ে এসেছে তার ভূয়সী প্রশংসা করে বলেন,তারা কৃষিকে ধারণ করেছে।তারা লাভবান হবে এবং সাফল্যের মুখ দেখছে।আমরা আশা করছি এভাবেই কুড়িগ্রামের কৃষি বাণিজ্যিক কৃষিতে রুপান্তর হবে। 

ফেসবুকের মাধ্যমে আমাদের মতামত জানাতে পারেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

এই বিভাগের আরো সংবাদ
Banglaheadlines.com is one of the leading Bangla news portals, Get the latest news, breaking news, daily news, online news in Bangladesh & worldwide.
Designed & Developed By Banglaheadlines.com