শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৮:৩২ অপরাহ্ন

ধুনটে ১০ ইউনিয়নে মনোনয়ন বাণিজ্য ।। রাজাকার সন্তানকে নৌকা দেওয়ার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর, ২০২১
  • ১২ দেখা হয়েছে

বাংলা হেডলাইনস বগুড়া প্রতিনিধি: বগুড়ার ধুনট উপজেলার ১০ ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন নিয়ে নানা অভিযোগ উঠেছে।

ভুক্তভোগীরা এসব ব্যাপারে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জরুরি হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। অন্যথায় আসন্ন নির্বাচনে সংগঠন মনোনীত প্রার্থীদের শোচনীয় পরাজয়ের আশংকা করা হচ্ছে।

সংগঠন থেকে দায়িত্বশীল নেতাদের সরিয়ে দেওয়া, মনোনয়ন বাণিজ্য, রাজাকারের সন্তানকে উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম সম্পাদক মনোনীত এবং দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে মানববন্ধন, বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করা হয়েছে।

বগুড়ার ধুনট সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ব্যানারে রাজাকারের সন্তান মাসুদ রানাকে উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মনোনীত করা এবং তাকে সদর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সোমবার দুপুরে স্থানীয় হুকুম আলী বাসস্ট্যান্ডে বিক্ষোভ মিছিল, মানবন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করা হয়েছে।

কর্মসূচিতে অন্যান্যের মধ্যে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি গোলাম সোবাহান, দপ্তর সম্পাদক আফসার আলী, প্রচার সম্পাদক মহসীন আলম মিন্টু, সদস্য শামীম হোসেন, সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মন্টু, ধুনট উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জাকারিয়া খন্দকার ছাড়াও ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে ধুনট সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ইউপি সদস্য মোস্তাফিজুর রহমান মন্টু বলেন, আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে তিনি দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী। কেন্দ্রের নিদের্শনা অনুযায়ি ৯টি ওয়ার্ড ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে বর্ধিত সভার মাধ্যমে ১০ জনের নামের তালিকা ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের কাছে পাঠানো হয়।

কিন্তু ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি টিআইএম নুরুন্নবী তারিক ও সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হাই খোকন তৃনমূল নেতাকর্মীদের মতমতকে উপেক্ষা করেন। তারা ধুনট উপজেলার গেজেটভুক্ত ৪৮নং রাজাকার ইদ্রিস আলীর ছেলে মাসুদ রানাকে গঠনতন্ত্র পরিপন্থীভাবে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক বানিয়ে তাকে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মনোনয়ন দেয়ার ষড়যন্ত্র করছেন। তৃনমুল নেতাকর্মীরা এসব দলীয় মনোনয়ন বাণিজ্য বন্ধ করতে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গত পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ছিলেন, ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান টিআইএম নূরুন্নবী তারিক। তিনি আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী দু’বারের মেয়র এজিএম বাদশাহর কাছে পরাজিত হন।

এরপর থেকেই স্থানীয় এমপি হাবিবর রহমানের সাথে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি টিআইএম নূরুন্নবী তারিক ও সাধারণ সম্পাদক ধুনট উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল হাই খোকনের রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব শুরু হয়। এতে ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা দ্বিধা বিভক্ত হয়ে পড়েন। আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনকে ঘিরে এই দুই গ্রুপের দ্বন্দ্ব এখন তুঙ্গে উঠেছে।

এ ব্যাপারে ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি টিআইএম নূরুন্নবী তারিক বলেন, আজকে যারা মানববন্ধন করেছেন তাদের ভোটেই মাসুদ রানা ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেয়েছিলেন। এরপর থেকেই মাসুদ রানা এমপি হাবিবর রহমানের সাথে ছিলেন। কিন্তু তখন কেন প্রশ্ন উঠলো না সে রাজাকার পুত্র। তবে এখন মাসুদ রানা স্বচ্ছ রাজনীতি করায় তাকে রাজাকার পুত্র বানানো হচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে বগুড়া-৫ (শেরপুর-ধুনট) আসনে আওয়ামী লীগের এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা হাবিবর রহমান বলেন, ২০১৬ সালে মাসুদ রানার বাবা ইদ্রিস আলীর নাম রাজাকারের গেজেটভুক্ত হয়। তবে এর আগেই মাসুদ রানাকে ধুনট উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সুপারিশে মনোনয়ন দেয়া হয়েছিল।

তিনি আরো বলেন, আমি আওয়ামী লীগের মনোনীত একজন সংসদ সদস্য হলেও আমার সঙ্গে বা দলের শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে কোন প্রকার পরামর্শ না করেই সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ইচ্ছেমত কাজ করে যাচ্ছেন।

ফেসবুকের মাধ্যমে আমাদের মতামত জানাতে পারেন।

খবরটি শেয়ার করুন..

এই বিভাগের আরো সংবাদ
Banglaheadlines.com is one of the leading Bangla news portals, Get the latest news, breaking news, daily news, online news in Bangladesh & worldwide.
Designed & Developed By Banglaheadlines.com